Author Topic: Make yourself smart in daily practice  (Read 897 times)

bbasujon

  • Guest
Make yourself smart in daily practice
« on: September 15, 2014, 02:21:24 PM »


এক রাতের মধ্যে কেউ স্মার্ট হয়ে যান না। সচেতনভাবে প্রতিদিনের চর্চার মাধ্যমে আপনি স্মার্টনেসকে অভ্যাসে পরিণত করে ফেলতে পারেন আপনি। প্রতিদিনই কীভাবে নিজেকে একটু স্মার্ট করে তুলতে পারেন তা নিয়ে ২৩টি পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এগুলো একটু দেখে নিন।

১. যেকোনো নতুন ১০টি বিষয় প্রতিদিন চিন্তা করে বের করুন। মূলত যতক্ষণ নিজের মস্কিষ্কের কোষগুলোকে এসব চিন্তায় ব্যস্ত রাখবেন আপনার ততোই লাভ।

২. প্রতিদিনই পত্রিকা পড়ুন। পৃথিবীর চারদিকে কোথায় কী ঘটছেন তার খবর রাখুন। এটা আপনাকে জ্ঞান দেবে।

৩. সম্প্রতি যা শিখেছেন তা নিয়ে চিন্ত-ভাবনা করুন। এর পক্ষে-বিপক্ষে যুক্তি তুলে ধরুন এবং বিশদ ব্যাখ্যার চেষ্টা করুন।

৪. ফিকশন বা নন-ফিকশন বইয়ের যেকোনো একটি অধ্যায় পড়ার চেষ্টা করুন। এর মাধ্যমে প্রতি দিনই নতুন কিছু শিখছেন এবং একইসঙ্গে নতুন পাঠকদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে উঠবে।

৫. শুধু বিনোদনমূলক টেলিভিশন অনুষ্ঠান দেখার চেয়ে শিক্ষামূলক ভিডিওচিত্র দেখুন। তাতে শেখার অনেক বিষয় রয়েছে।

৬. মজার এবং অদ্ভুত বিষয়ে তথ্য দেয় এমন ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করুন। বিজ্ঞান, সমাজ, প্রকৃতি ইত্যাদি বিষয়ে এসব তথ্য দেখুন।

৭. প্রিয় জ্ঞান-বিজ্ঞান বিষয়ে তথ্যের উৎসগুলো পর্যবেক্ষণ করুন। প্রতিদিন এক পলক চোখ বুলান।

৮. যা শিখছেন তা অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করুন। যদি এমন কাউকে পান যিনি আলোচনা করতে চান, তবে তা মিস করবেন না।

৯. দক্ষতা অর্জনে দুটো তালিকা করুন। একটি বর্তমান কাজের প্রয়োজনে এবং অপরটি ভবিষ্যতে যে সব বিষয়ে শিখতে চান।

১০. যা যা করেছেন তার একটি তালিকা করুন। এতে নিজের জ্ঞান সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থাকবেন আপনি। আরো শেখার উৎসাহ বাড়বে।

১১. যা যা শিখছেন তথ্য আকারে তা লিখে ফেলুন। তাহলে তথ্যটি স্থায়ীভাবে মাথায় ঢুকে যাবে। এগুলো যেকোনো ব্লগে বা নোটপ্যাডে লিখে রাখতে পারেন। অন্যের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন।

১২. মানসিক স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে প্রতিদিন মেডিটেশন করুন এবং ব্যায়াম করুন। এতে যেকোনো কঠিন বিষয়ে মনটাকে শান্ত এবং সবল রাখতে সহজ হবে।

১৩. অনলাইনে যেকোনো জরপ্রিয় কোর্স করুন। দক্ষতা বৃদ্ধিসহ সিভি বেশ ভারী হবে। মনের মতো চাকরি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিভিন্ন কোর্স করতে পারেন।

১৪. এমন কারো সঙ্গে কথা বলুন যার সঙ্গে কথা বলার আগ্রহ রয়েছে আপনার। তাদের চিন্তা-ভাবনা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন।

১৫. আপনার চেয়ে স্মার্ট এবং বিজ্ঞ মনে হয় এমন মানুষের সঙ্গ লাভের চেষ্টা করুন। তাদের কাছে থেকে নিজের স্মার্টনেসকে ঝালাই করে নিতে পারবেন।

১৬. নিজের মনের যে সব প্রশ্ন রয়েছে সেগুলো নিয়ে চিন্তা করুন। নিজেই উত্তর বের করার চেষ্টা করুন।

১৭. ভোকাবুলারি বাড়ানোর জন্য প্রতিদিন কিছু নতুন শব্দ শিখুন। এগুলো এক সময় আপনাকে আইএলটিএস বা এসএটি বা জিআরই পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত করে দেবে।

১৮. ভয়ের কিছু করুন। যে সব পরিস্থিতিতে আমরা ভড়কে যায় সে সব পরিবেশের অভিজ্ঞতা ভবিষ্যতে কাজে দেবে। এ ছাড়া রোমাঞ্চকর অনুভূতি পাবেন এসবের মাধ্যমে।

১৯. নতুন কোনো এলাকা বা স্থানে ঘুরতে যান। অন্তত আপনার বাসস্থানের আশপাশের কোনো স্থান একটু দেখে আসুন।

২০. স্মার্ট গেম খেলুন। দাবা বা এ ধরনের গেম খেলুন। চ্যালেঞ্জ নিয়ে এসব গেম খেলুন।

২১. কিছু সময় বাঁচিয়ে বিশ্রাম করুন। এ সময়টিতে কিছুই করবেন না। এতে মানসিক শান্তিসহ দৈহিক শক্তি ফিরে পাবেন.

২২. উৎপাদনশীল কোনো শখ গড়ে তুলুন। প্রতিদিন এর পেছনে কাজ করতে পারেন। সেলাই থেকে শুরু করে মাছ ধরাও এর মধ্যে পড়তে পারে।

২৩. যা শিখেছেন যা বাস্তবজীবনে বাস্তবায়িত করার চেষ্টা করুন। নতুন যন্ত্র বাজানো বা নির্দিষ্ট কোনো কাজ করার পদ্ধতি বই বা অনলাইনে শিখে থাকলে তা নিজে করে দেখার চেষ্টা করুন।

সূত্র: কালেরকণ্ঠ